রামুতে কৃষি ব্যাংকের গ্রীল কেটে চুরির চেষ্টা : আটক ১

সোয়েব সাঈদ, রামু

কক্সবাজারের রামু কৃষি ব্যাংকের জানালার গ্রীল কেটে চুরি করতে গিয়ে এক ব্যক্তিকে হাতেনাতে ধরেছে স্থানীয় জনতা। খবর পেয়ে পুলিশ জনতার কাছ থেকে আটক ব্যক্তিকে থানা হেফাজতে নিয়ে যায়। আটক ব্যক্তি পেকুয়া উপজেলার পেকুয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের সরকারি ঘোনার বাসিন্দা মো. ফেরদৌসের ছেলে নাজিম বলে প্রাথমিক ভাবে পরিচয় পাওয়া গেছে। শুক্রবার (৮ জুন) রাত ১১টার দিকে সংঘটিত এ ঘটনায় আটক নাজিমের হামলার শিকার ব্যাংকের নিরাপত্তা গার্ড আহত জিন্টু বড়–য়াকে রাতেই রামু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

খবর পেয়ে শুক্রবার রাতেই রামু কৃষি ব্যাংক পরিদর্শন করেন, কক্সবাজার জেলা পুলিশের এএসপি মো. সাইফুল ইসলাম, এএসপি (ডিএসবি) শহিদুল ইসলাম, রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. লুৎফুর রহমান, রামু থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এস এম মিজানুর রহমান সহ পুলিশ ফোর্স। রাতে রামুতে ব্যাংক ডাকাতি হচ্ছে খবর ছড়িয়ে পড়ে। খবর শুনে ঘটনাস্থলে শত শত উৎসুক জনতা ভীড় জমায়। পরে জানা যায় এটি চুরির ঘটনা। এ ঘটনায় রামু কৃষি ব্যাংকের দ্বিতীয় কর্মকর্তা মানিক চন্দ্র দে রামু থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় জনতা জানান, শুক্রবার রাত ১১টার দিকে রামু কৃষি ব্যাংকের পেছনের জানালার গ্রীল কেটে চুরি করতে ঢুকে আটক ব্যক্তি নাজিম। এসময় ব্যাংকের নিরাপত্তা গার্ড জিন্টু বড়–য়া ব্যাংকে চুরের উপস্থিতি ও উপর্যপূরি ধারালো অস্ত্রের হামলায় চিৎকার করে উঠে। জিন্টু বড়–য়ার চিৎকার শুনে স্থানীয় জনতা নাজিমকে নাতেনাতে ধরে মারধর করে। খবর পেয়ে স্থানীয় জনতার গণধোলাই থেকে আটক নাজিমকে উদ্ধার করে রামু থানা হেফাজতে নিয়ে যায় পুলিশ এবং আহত ব্যাংকের নিরাপত্তা গার্ড ঝিন্টু বড়–য়াকে রামু থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবার জন্য প্রেরণ করে। জানা যায় আটক আটক নাজিম পেকুয়ার উপজেলাধীন সরকারি ঘোনার দূর্ধর্ষ চোর চক্রের সদস্য।

ad

রামু কৃষি ব্যাংকের ব্যবস্থাপক মো. নুরুল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাত ১১টার দিকে ব্যাংকের নিরাপত্তা গার্ড জিন্টু বড়–য়া পাশ্ববর্তী তার নিজ বাড়িতে ভাত খেতে যান। এসময় দ্বিতল বিশিষ্ট ভবনের দ্বিতীয় তলা ব্যাংকের পেছনের সানসিটে উঠে জানালার গ্রীলের ৩টি লোহার শিক কেটে ব্যাংকে প্রবেশ করে, ২টি সিসি ক্যামেরার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। এরপর বিভিন্ন কর্মকর্তার টেবিলের ড্রয়ার, স্টীলের আলমারীর তালা ভেঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ ঋণনথি, মূল্যবান হিসাব নিকাশ ও দলিলপত্র তছনছ ও লুটপাট করে। তিনি জানান, রাত আনুমানিক ১১টা ১৫ মিনিটের দিকে ব্যাংকের নিরাপত্তা গার্ড জিন্টু বড়–য়া ব্যাংকের মুল গেইট দিয়ে প্রবেশ করে অভ্যন্তরের চারদিকে দেখার সময়ে অর্তকিতে ব্যাংকের ভিতরে লুকিয়ে থাকা ব্যক্তিটি হাতের র‌্যঞ্জ দিয়ে জিন্টু বড়–য়ার মাথা ও শরীরে ব্যাপক ভাবে আঘাত করে। এক পর্যায়ে ব্যাংকের দরজা খুলে দিতে বাধ্য করে। এসময় আহত জিন্টু বড়–য়ার চিৎকার শুনে স্থানীয় জনতা এগিয়ে এসে হামলাকারী নাজিমকে আটক করে। এ ঘটনায় আমরা রামু থানায় মামলা দায়ের করেছি।

এ ব্যাপারে রামু থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এস এম মিজানুর রহমান জানান, খবর পাওয়ার সাথে সাথে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে চোর নাজিমকে আটক করে। কৃষি ব্যাংকের পেছনের জানালার গ্রীল কেটে চুরি উদ্দেশ্যে ব্যাংকের ভিতর প্রবেশ করে সে। ব্যাংকের নিরাপত্তা গার্ড চোর নাজিমকে দেখে ফেলায়, তার উপর হামলা করে। এতে নিরাপত্তা গার্ড ঝিন্টু বড়–য়া গুরুতর আহত হন। চোরটি ব্যাংকের কোন টাকা বা কাগজপত্র নিতে পারেনি। ব্যাংক এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।