ad

স্মার্টফোনে যেভাবে মাপবেন রক্তচাপ

বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষই ভোগেন রক্তচাপের সমস্যায়। নিয়মিত রক্তচাপ পরিমাপ করতে যেতে হয় হাসপাতাল বা ডাক্তারের কাছে। আর নয়তো কিনে রাখতে হয় রক্তচাপ মাপার যন্ত্র। কিন্তু, এবার আর আপনার রক্তচাপ পরিমাপ করা নিয়ে কোনও চিন্তার প্রয়োজন নেই। যারা রক্তচাপজনিত সমস্যায় ভুগছেন, তাদের জন্য সুখবর। কারোর সাহায্য ছাড়াই মাপা সম্ভব হবে রক্তচাপ। আবিষ্কৃত হয়েছে একটি অভিনব রক্তচাপ মাপার অ্যাপ। স্মার্টফোনে এক অ্যাপের সাহায্যে মাপা যাবে রক্তচাপ।

রক্তচাপ কাকে বলে ও এর লক্ষণঃ রক্তচাপ সাধারণত দু’ধরনের হয়- উচ্চ রক্তচাপ, নিম্ন রক্তচাপ। রক্তচাপ যদি স্বাভাবিকের চাইতে বেশি থাকে তাহলে তাকে উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপারটেনশন বলে। অনেকসময় শুধু “প্রেশার” বলেও উল্লেখ করা হয়। বেশি পরিমাণে লবণ খাওয়া, অতিরিক্ত মেদ, কাজের চাপ, চিন্তা এগুলোর কারণে উচ্চ রক্তচাপ হয়ে থাকে। মাথা যন্ত্রণা, চোখে ঝাপসা দেখা, ক্লান্তি, বুকে ব্যাথা ইত্যাদি উচ্চ রক্তচাপের লক্ষণ। রক্তচাপ যদি স্বাভাবিকের চাইতে কম থাকে তাহলে তাকে নিম্ন রক্তচাপ বা হাইপোটেনশন বলে। এর সাধারণ লক্ষণ হল মাথা ঘোরা, যখন তখন অজ্ঞান হয়ে যাওয়া। এখন থেকে আপনি নতুন প্রযুক্তির রক্তচাপ মাপার অ্যাপ-এর সাহায্যে আপনার স্মার্টফোনের সেলফি ক্যামেরার মাধ্যমে সহজেই মাপতে পারবেন রক্তচাপ।

কীভাবে কাজ করবে এই অ্যাপঃ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার গবেষকরা এমনই এক অ্যাপ তৈরি করতে সক্ষম হয়েছেন। এটি তৈরির জন্য তারা ‘ট্রান্সডার্মাল অপটিক্যাল ইমেজিং’ নামক একটি প্রযুক্তি ব্যবহার করেছেন। এর সাহায্যে ভিডিয়ো সেলফির মাধ্যমে রক্তচাপ মাপা সম্ভব হবে। ত্বকের বাইরের স্তরে আলোর প্রতিফলন থেকেই স্মার্টফোনের ক্যামেরা সেন্সরের সাহায্যে রক্তপ্রবাহের ধরন বোঝা যাবে। “গবেষণায় দেখা গেছে, মুখের ভিডিয়ো থেকে সিস্টোলিক রক্তচাপের কিছু তথ্য পাওয়া যাবে।” চিকিত্সা বিজ্ঞান সংক্রান্ত একাধিক পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে এই গবেষণা। গবেষণা পত্রের প্রধান লেখক টরন্টো বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ক্যাং লি জানিয়েছেন, উচ্চ রক্তচাপ হৃদরোগের অন্যতম কারণ। এটি প্রতিরোধ করতে রক্তচাপের নিয়মিত পর্যবেক্ষণ অপরিহার্য। কাফ-ভিত্তিক রক্তচাপ পরিমাপক যন্ত্রগুলি নির্ভুল হলেও তা অত্যন্ত অস্বস্তিকর। এই অ্যাপ বাজারে এলে রোগীদের অনেক সমস্যার সুরাহা হবে। গবেষকরা প্রায় ১,৩২৮ জন কানাডীয় ও চীনা নাগরিকের ওপর এই প্রযুক্তি যাচাই করেছিলেন। আইফোনে এই বিশেষ সফটওয়্যার যোগ করে ওই ব্যক্তিদের দুই মিনিটের সেলফি ভিডিয়ো তোলেন তাঁরা। গবেষকরা জানিয়েছেন, ৯৫ শতাংশ ক্ষেত্রেই সঠিক ডায়াস্টোলিক রক্তচাপ পাওয়া গিয়েছে। পালস প্রেশারও ৯৬ শতাংশ ক্ষেত্রেই সঠিক পাওয়া গিয়েছে। জানা গেছে,গবেষকরা কৃত্রিম আলোর সাহায্যে এই গবেষণা করেছেন। বাইরের পরিবেশে বা বাড়িতে এই প্রযুক্তি কতটা কার্যকর হবে, সেটা এখনও পরিষ্কার নয়। সেই বিষয়ে পরিষ্কার হতে গবেষকরা কাজ করছেন। এছাড়াও, গবেষকরা ২ মিনিটের ভিডিয়োর ওপর গবেষণা করেছিলেন। তাই, সময় কমিয়ে সেটা ৩০ সেকেন্ডে আনার চেষ্টা করছেন। যার ফলে এই প্রযুক্তি ব্যবহার করা আরও সহজতর হয়ে উঠবে।

ad