ad

মৌসুমী বললেন, একটি ছবি দিয়ে আমার রাজনৈতিক অবস্থান ও আদর্শকে বুঝানো যাবে না

একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের জন্য আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়নপত্র কেনার পর চিত্রনায়িকা মৌসুমীকে নিয়ে নানা বিতর্কের সৃষ্টি হতে শুরু হয়েছে। ফেসবুক ও বিভিন্ন অনলাইনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে মৌসুমীর একটি ছবি দেখিয়ে তার রাজনৈতিক মতাদর্শ নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির একটি অনুষ্ঠানের এই ছবিটিতে তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবাইদা ছাড়াও ছিলেন ববিতা, মান্নাসহ গায়ক-গায়িকারা। এ ব্যাপারে মৌসুমী বলেন, ‘ এই ছবিটি দিয়ে আমার রাজনৈতিক অবস্থান ও আদর্শকে বুঝানো যাবে না। সুতরাং এগুলো নিয়ে কথা বলার কিছু নেই। শিল্পী হিসেবে অনেকেই আমাকে ডেকেছেন। গিয়েছি। আমি আগে কখনও বলিনি, কোনো দলের কিংবা কারও হয়ে কাজ করতে চাই। তা হলে এই প্রশ্ন কেন আসছে?’

মোৗসুমী বলেন, অনুষ্ঠানে ববিতা, মান্নাসহ অনেক গায়ক-গায়িকাও ছিলেন। সকলেরই ছবি আছে। তাদেরকে বাদ দিয়ে শুধু আমার ছবিটি প্রচার উদ্দেশ্যমূলক। এ ধরনের অপপ্রচারকে গুরুত্ব না দেওয়াই ভালো।

পুরনো একটি ছবিকে এই সময়ে সামনে এনে তার রাজনীতিতে আসার উৎসাহকে বাধাগ্রস্ত করার অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন মৌসুমী। যারা তা করছেন, তাদের এই পথ থেকে সরে আসার আহ্বান জানান তিনি।

মনোনয়ন সংগ্রহের পর বৃহস্পতিবার এফডিসির প্রযোজক সমিতিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন ডেকে এ তথ্য জানান দেন তিনি। তিনি কেন সংরক্ষিত নারী আসন থেকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছেন তারও ব্যাখ্যা দেন সংবাদ সম্মেলনে।

মৌসুমী বলেন, যদি আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে তার সিলেকশনে সংসদে যেতে পারি তাহলে তিনি আমাকে কোনো একটা সেক্টরে কাজের সুযোগ দেবেন। একটা দায়িত্ব পাবো বলে আমার বিশ্বাস। সেই দায়িত্ব পালন করতে পারলে আমি নিজেকে ধন্য মনে করব।

তিনি রাজনীতিতে এসেছেন বলে দর্শকের তাকে ভুল বোঝার কোনো কারণ নেই জানিয়ে তিনি বলেন, আমার দর্শক বা দেশের মানুষদের কারোই আমাকে ভুল বোঝার সুযোগ নেই। কিন্তু ওই পর্যন্ত আমাকে যেতে হবে। আমার একটা ভাল চিন্তা আছে। এটাকে সকলের অ্যাপ্রিসিয়েট করা উচিত বলে আমি মনে করি।

ad