ad

মহেশখালীতে ছেলেধরা সন্দেহে রোহিঙ্গা নারী আটক

মহেশখালীতে ছেলেধরা সন্দেহে এক রোহিঙ্গা নারীকে আটক করেছে স্থানীয়রা। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নের চালিয়াতলী থেকে তাকে আটক করা হয়। পরে তাকে পুলিশে কাছে সোপর্দ করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওই নারী চালিয়াতলী চিতাখোলা নামক স্থানে স্থানীয় ৬/৭ বছরের এক ছেলেকে পাকড়াও করে ধরে গলা টিপে ধরে। এক পর্যায়ে তাকে গলায় নখ দিয়ে মারাত্মক আঘাত করলে ওই ছেলেটি চিৎকার দেয়। তার চিৎকারে অদূরে থাকা লোকজন এগিয়ে যায়। লোকজন এগিয়ে গেলে ওই নারী পালাতে চেষ্টা করে। তবে তাকে পাকড়া করে তাকে ধরে আটকে রাখে। পরে পুলিশকে খবর দিলে ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই নারীকে কালারমারছড়া পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ওই নারীর নখের আঘাতে আহত হয়েছে ওই ছেলে আহত হয়েছেে।
আরো জানা গেছে, ওই নারী নিজেকে রোহিঙ্গা বলে পরিচয় দিয়েছে। সে জানিয়েছে, তার মানসিক সমস্যা রয়েছে। সে কারণে কুতুপালং ক্যাম্প থেকে বের হয়ে ঘুরতে ঘুরতে সেখানে চলে এসেছে।
এ ব্যাপারে কালারমারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ লিটন নন্দী সিংহ বলেন, ‘স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ওই নারীকে ফাঁড়িতে নিয়ে এসেছে। তবে আমি ছুটিতে থাকায় এখন পর্যন্ত জানতে পারিনি।’ সিবিএস

ad