ভূঁয়া মেডিকেল রিপোর্ট: কক্সবাজারে শেভরনকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

ডেস্ক রিপোর্ট;:
ডাক্তারের স্বাক্ষরবিহীন মেডিকেল রিপোর্ট সরবরাহ, অপরিস্কার-অপরিচ্ছন্ন ল্যাব, যথাযথ তাপমাত্রা সংরক্ষণ না করা, মেয়াদোত্তীর্ণ সামগ্রী ব্যবহারসহ নানা অভিযোগে কক্সবাজার শেভরনকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা করেছে র‌্যাবের মোবাইলকোর্ট। অভিযানকারীদের হাতে ধরা পড়েছে অন্তত অর্ধশত ডাক্তারের স্বাক্ষরবিহীন স্ক্যান করা মেডিকেল রিপোর্ট।
এরকম অনিয়ম না করতে সতর্ক করা হয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে।
র‌্যাবের হেডকোয়ার্টারের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ সরওয়ার আলমের নেতৃত্বে শনিবার বিকালে অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় সিভিল সার্জন অফিসের ডাঃ মহিউদ্দিন মোহাম্মদ আলমগীরসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।
বিকাল ৪টায় অভিযান শেষে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ সরওয়ার আলম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।
তিনি বলেন, শেভরন ক্লিনিকেল ল্যাবটরির পরীক্ষাগারে মারাত্নক অনিয়ম পাওয়া গেছে। রিপোর্টে ডাক্তারের কোন স্বাক্ষর নেই। স্ক্যান করা স্বাক্ষরে রিপোর্ট চালিয়ে দিচ্ছে।

মেডিকেল রিপোর্টে ডাক্তারের স্ক্যান করা স্বাক্ষর। অভিযানকারীদের হাতে ধরা পড়েছে এরকম অন্তত অর্ধশত ডাক্তারের স্বাক্ষরবিহীন রিপোর্ট।

তিনি আরো বলেন, ল্যাবে চরম খামখেয়ালিপনা রয়েছে। রিপোর্টসহ অধিকাংশ পরীক্ষা-নীরিক্ষার গুনগত মান ঠিক নাই। মেডিকেল রিপোর্টে একজন ডাক্তারের স্বাক্ষর চার ধরণের পাওয়া গেছে। কো কিছুতেই গুণগত মান বজায় রাখা হয়নি। তবে কর্তৃপক্ষের দাবী, যথাযথ নিয়ম মেনেই তারা ল্যাব পরিচালনা করছেন।
ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ এর আলোকে প্রাথমিকভাবে ৪ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আগামীতে অনিয়ম পাওয়া গেলে কঠিন দন্ড দেয়া হবে বলেও জানান র‌্যাবের এই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।
এর আগে ফুয়াদ আল খতিব হাসপাতালকে ৩ লাখ টাকা এবং সী-সাইট হাসপাতালকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমান আদালত। ওই দুই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধেও অনিয়মের অভিযোগ ছিল।