বাসের চাকায় পিষ্ট ইউএনওসহ চারজন

দিনাজপুর: দিনাজপুরের বীরগঞ্জে যাত্রীবাহী বিআরটিসি বাসের সঙ্গে জিপের মুখোমুখী সংঘর্ষে উপজেলা নিবার্হী অফিসারসহ ৪ জন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন, পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মন (৩৫) তার দুই আত্মীয় নিরঞ্জন রায় (৭৫) এবং অজিত কুমার রায় (৪৪) এবং গাড়ির চালক মো. মিন্টু (৩৪)। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় রংপুর-পঞ্চগড় সড়কের বীরগঞ্জ পৌর শহরের শালবন মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বীরগঞ্জ থানা পুলিশের এসআই মো. দুলাল হক জানান, পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মন অফিসের গাড়ি নিয়ে সপরিবারে দিনাজপুর যাচ্ছিলেন। পথে বীরগঞ্জ পৌর শহরের শালবন মোড়ে রংপুর থেকে ছেড়ে আসা পঞ্চগড়গামী যাত্রীবাহী বিআরটিসি বাসের সঙ্গে মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ অন্যরা আহত হয়।

আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ঘটনার সময় বৃষ্টি হচ্ছিল এবং ঘটনাস্থল থেকে বিআরটিসি গাড়িটি পালিয়ে যায় বলে তিনি জানান।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মো. মাহামুদুল হাসান পলাশ জানান, আহতরা সকলেই মাথায় আঘাত পেয়েছে। কেউই আশঙ্কামুক্ত নয়। ঘটনার পর প্রচুর রক্তক্ষরণ হওয়ায় তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার পর হাসপাতালে ছুটে আসেন বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. তোফাজ্জল হোসেন, বীরগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালাহউদ্দিন ও বীরগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি মোছা. সাকিল পারভীন।

শীর্ষনিউজদিনাজপুরের বীরগঞ্জে যাত্রীবাহী বিআরটিসি বাসের সঙ্গে জিপের মুখোমুখী সংঘর্ষে উপজেলা নিবার্হী অফিসারসহ ৪ জন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন, পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মন (৩৫) তার দুই আত্মীয় নিরঞ্জন রায় (৭৫) এবং অজিত কুমার রায় (৪৪) এবং গাড়ির চালক মো. মিন্টু (৩৪)। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় রংপুর-পঞ্চগড় সড়কের বীরগঞ্জ পৌর শহরের শালবন মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বীরগঞ্জ থানা পুলিশের এসআই মো. দুলাল হক জানান, পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মন অফিসের গাড়ি নিয়ে সপরিবারে দিনাজপুর যাচ্ছিলেন। পথে বীরগঞ্জ পৌর শহরের শালবন মোড়ে রংপুর থেকে ছেড়ে আসা পঞ্চগড়গামী যাত্রীবাহী বিআরটিসি বাসের সঙ্গে মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ অন্যরা আহত হয়।

আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ঘটনার সময় বৃষ্টি হচ্ছিল এবং ঘটনাস্থল থেকে বিআরটিসি গাড়িটি পালিয়ে যায় বলে তিনি জানান।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মো. মাহামুদুল হাসান পলাশ জানান, আহতরা সকলেই মাথায় আঘাত পেয়েছে। কেউই আশঙ্কামুক্ত নয়। ঘটনার পর প্রচুর রক্তক্ষরণ হওয়ায় তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার পর হাসপাতালে ছুটে আসেন বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. তোফাজ্জল হোসেন, বীরগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সালাহউদ্দিন ও বীরগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি মোছা. সাকিল পারভীন।