বাংলাদেশের উপর চাপ সৃষ্টি করতে মোদির হস্তক্ষেপ দাবি ভারতে

Modi-550x367মাছুম বিল্লাহ : সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা ইস্যুতে এবার বাংলাদেশের উপর চাপ সৃষ্টি করতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদির হস্তক্ষেপ চেয়েছেন ভারতের কট্টর হিন্দুত্ববাদী সংগঠন বিশ^ হিন্দু পরিষদ (ভিএইচপি)। একই দাবি জানিয়েছে ভারতের আসাম রাজ্যের বেশ কয়েকটি সংগঠন। তারা ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদির কাছে স্মারকলিপি পাঠিয়ে বাংলাদেশের উপর চাপ সৃষ্টির মাধ্যমে হিন্দুদের ‘সুরক্ষা’র দাবি জানিয়েছে। খবর দৈনিক যুগশঙ্খ, অসমীয় প্রতিদিন ও দৈনিক সাময়িক প্রসঙ্গের।
বিশ^ হিন্দু পরিষদের দক্ষিণ-পূর্ব প্রান্তের সম্পাদক মৃণালকান্তি দাস ভারতের প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি করে বলেছেন, ‘বাংলাদেশ থেকে সমূলে হিন্দুদের উৎখাতের চক্রান্ত কোনও অবস্থায় বরদাস্ত করা হবে না। অতীতে বহুবার হিন্দুদের ছিন্নমূল করে বাংলাদেশ থেকে বিতাড়ন করা হয়েছে। এখন জঙ্গিরা নির্মম হত্যা, অত্যাচারের মাধ্যমে যে পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে তা প্রতিরোধ করতে বর্তমান শেখ হাসিনা সরকার ব্যর্থতার নিদর্শন রেখে চলেছে। কাজেই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের উপর চাপ সৃষ্টি করা উচিত যাতে এই চূড়ান্ত অন্যায়,অবিচার ও হিন্দু হত্যার খেলা অবিলম্বে বন্ধ হয়।’
বিশ^ হিন্দু পরিষদ ছাড়ও হিন্দু লিগ্যাল সেল, পৃথক বরাক দাবি কমিটি, পুরোহিত অর্চক সমিতি ও সিটিজেনস রাইটস প্রিজারভেশন কমিটি (সিআরপিসি), আসাম একই ধরনের দাবি জানিয়েছে।
সংগঠনগুলো বাংলাদেশের সংখ্যালঘুদের উপর সাম্প্রতিক হামলায় উদ্বেগ প্রকাশ করে তাদের সুরক্ষায় প্রধানমন্ত্রী মোদির হস্তক্ষেপ চেয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে মোদিকে স্মারকলিপি পাঠিয়েছে।
আসামের হিন্দু লিগ্যাল সেল সোমবার কাছাড় জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উদ্দেশে একটি স্মারকপত্র দিয়েছে। সেখানে সংগঠনটি উল্লেখ করেছে, বাংলাদেশে হিন্দু হত্যাযজ্ঞ চলছে, নানাভাবে হিন্দুদের হেনস্তা, নির্যাতন ও লুটপাট চলছে। কিন্তু বাংলাদেশের হাসিনা সরকার উপযুক্ত পদক্ষেপ নিচ্ছে বলে পরিলক্ষিত হচ্ছে না। সেজন্য বাংলাদেশে নির্যাতিত হিন্দুদের ভারতে আশ্রয় নেওয়ার অনুমতি দিতে মোদির পদক্ষেপ চায় হিন্দু লিগ্যাল সেল।
সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তার জন্য জন্য বাংলাদেশের উপর ভারতের হস্তক্ষেপ দাবি করে আসামের পৃথক বরাক দাবি কমিটি অনশন করেছে। সোমবার সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক শুভদীপ দত্ত (মলয়) অনশন শেষে কাছাড় জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী মোদির কাছে স্মারকলিপি পাঠান।
সিটিজেনস রাইটস প্রিজারভেশন কমিটি (সিআরপিসি) এক বিবৃতিতে বলেছে বাংলাদেশে হিন্দুদের জীবন ও সম্পত্তি, নিরাপত্তা অবিলম্বে সুনিশ্চত না হলে ভারতের দিকে নতুনভাবে শরণার্থী ¯্রােত ধাবিত হতে পারে। এ জন্য সংগঠনটি বাংলাদেশের উপর ভারতের জোরালো হস্তক্ষেপ দাবি করেন।
এ ছাড়াও পুরোহিত অর্চক সমিতি বাংলাদেশে পুরোহিত ও আশ্রমের সেবক থেকে শুরু করে একের পর এক নিরীহ হিন্দু নাগরিকের হত্যার ঘটনাতে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। বিশ^ হিন্দু পরিষদের অঙ্গ সংগঠন পুরোহিত অর্চক সমিতির দক্ষিণ-পূর্ব প্রান্তের প্রভারী অমলেন্দু ভট্টাচার্য বাংলাদেশের উপর চাপ সৃষ্টি করতে প্রধানমন্ত্রী মোদির প্রতি জোরালো আবেদন জানিয়েছেন।

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন