নম্বর ঠিক রেখে অপারেটর পরিবর্তন সেবা শুরু

মোবাইল ফোন সিমের নম্বর ঠিক রেখে অপারেটর বদল (এমএনপি) সেবা রোববার দিবাগত রাত ১২টার পর থেকে শুরু হয়েছে।
এর আগে রোববার টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির চেয়ারম্যান জহুরুল হক এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
বিটিআরসির চেয়ারম্যান বলেন, এই সেবা চালু হলে মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোকে মানসম্মত সেবা দিয়ে টিকে থাকতে হবে। অপারেটর পছন্দ বা পরিবর্তনে গ্রাহক সম্পূর্ণ স্বাধীনতা ভোগ করবেন। তিনি উল্লেখ করেন, এই সেবা গ্রহণে মোবাইল ব্যবহারকারীকে কিছু অর্থ ব্যয় করতে হবে।

জানা গেছে, এমএনপি (মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি) সেবা নিতে যে নতুন অপারেটর পছন্দ করা হবে সেই অপারেটরের কাস্টমার কেয়ার সেন্টার বা বায়োমেট্রিক রেজিস্ট্রেশন পয়েন্টে যেতে হবে। সব কাজ শেষ করে নতুন সিম নিতে ৫ মিনিটের মতো লাগবে। তবে, এমএনপি ফিস লাগবে ৫০ টাকা (এর সঙ্গে আরো যুক্ত হবে ট্যাক্স ও সিম প্রতিস্থাপন খরচ)।

নতুন সিম চালু হতে ৭২ ঘণ্টা সময় লাগবে। তবে জরুরি সেবা মাশুল দিলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেও এমএনপি সিম চালু করা যাবে। একবার অপারেটর বদল করে ৯০ দিন পরে আবার আগের অপারেটরে বা নতুন অপারেটরে যাওয়া যাবে। মোবাইল অপারেটরগুলো এমএনপি সেবা চালু করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে বলে জানা গেছে।

ad

মোবাইল ফোন অপারেটর রবি জানিয়েছে, সরকারের নির্ধারিত সময় অনুযায়ী ১ অক্টোবর থেকে গ্রাহকদের জন্য এমএনপি সেবা দিতে প্রস্তুত রবি আজিয়াটা লিমিটেডের দু’টি ব্র্যান্ড রবি ও এয়ারটেল। এমএনপি সেবার মাধ্যমে গ্রাহকরা নম্বর অপরিবর্তিত রেখে অন্য অপারেটরের সেবা গ্রহণের সুযোগ পাবেন। রবি আরো জানায়, গ্রাহকরা রবির সেবা গ্রহণ করার সঙ্গে সঙ্গে যে কোনো অপারেটরে যে কোনো সময় ৫০ পয়সা কল রেটে কথা বলার সুযোগ পাবেন। এছাড়া যে কোনো ভয়েস বান্ডেল প্যাক কিনলে ৬ মাসের মেয়াদ পাবেন গ্রাহকরা।

রবি সূত্র জানায়, অন্য অপারেটর থেকে রবি বা এয়ারটেল নেটওয়ার্কে যোগ দিতে গ্রাহকদের শুধু তাদের জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য নিয়ে রবি বা এয়ারটেলের কাস্টমার কেয়ার সেন্টার বা যে কোনো বায়োমেট্রিক রেজিস্ট্রেশন পয়েন্টে যোগাযোগ করতে হবে। এসব জায়গার যে কোনো একটি থেকে গ্রাহককে নেটওয়ার্ক পরিবর্তনের অনুরোধটি করতে হবে। অনুরোধ করার এক ঘণ্টার মধ্যে গ্রাহককে জানানো হবে তিনি এমএনপি সেবা গ্রহণ করতে পারবেন কিনা। গ্রাহক এমএনপি সেবা গ্রহণের শর্তাবলি পূরণ করলে তাকে একটি নতুন রবি বা এয়ারটেল সিম দেয়া হবে।

বাংলালিংক সূত্রে জানা গেছে, অপারেটরটি সোমবার থেকেই এমএনপি সেবা দিতে প্রস্তুত। বাংলালিংক কাস্টমার কেয়ারে গিয়ে গ্রাহকদের নতুন সিম নিতে হবে।