ad

দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৩৩১ রানের লক্ষ্য দিল বাংলাদেশ

উখিয়া নিউজ ডেস্ক::
চলছে ক্রিকেটের সব থেকে বড় আসর আইসিসি বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপ মিশনের শুরুতেই দক্ষিণ আফ্রিকার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। টুর্নামেন্টের পঞ্চম ম্যাচ ও নিজেদের প্রথম ম্যাচে বেশ বড় সংগ্রহ করল টাইগাররা। টস হেরে আগে ব্যাট করে ৩৩০ রানের বড় সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। যা বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সব থেকে বড় সংগ্রহ এমনকি ওয়ানডেতে ও। প্রোটিয়াদের সামনে ৩৩১ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিল টাইগাররা।
লন্ডনের দ্য ওভালে শুরুতেই ব্যাট করতে আসেন টাইগার ওপেনার তামিম ইকবাল। সাথে ছিলেন হার্ডহিটার সৌম্য সরকার। দুইজনই আজ নিজের বেস্টটা দিতে বদ্ধ পরিকর। দেখে খেলছিল বাংলাদেশের দুই ব্যাটসম্যান। হেসে খেলেই দলীয় অর্ধশত পার করে টাইগাররা। আর এদিকে দুইটি রেকর্ড করে ফেললেন সৌম্য সরকার। বাংলাদেশের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শততম ম্যাচ খেলতে নেমেছেন তিনি।

সেই সাথে ২৯ রান করার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৩০০০ রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি। দলীয় অর্ধশত পার করেই বিদায় নিলেন তামিম ইকবাল। অ্যান্ডি ফিলহুকওয়ের বলে ডি ককের হাতে ক্যাঁচ তুলে দেন টাইগার ওপেনার। ব্যক্তিগত ১৬ রানেই ফিরতে হয় তাঁকে। এরপর সৌম্য সরকারের সুযোগ ছিল নিজের ক্যারীয়ারে আরো একটি অর্ধশত যোগ করার। কিন্তু ভাগ্য তার পক্ষে ছিল না। কাছেই গিয়েও পারলেন না এই টাইগার ব্যাটসম্যান।

৪২ রানে ক্রিস মরিসের লেফট সাইডের বাউন্স বলে শর্ট করলে তা গ্লাভসে লেগে চলে যায় পিছনে। আর দক্ষ উইকেট রক্ষক কুইন্টন ডি কক ছুটে এসে লাফ দিয়ে তা লুফে নেন। আর এতেই বিদায় হতে হয় সৌম্যকে। এরপর মাঠে আসেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল খ্যাত মুশফিকুর রহিম। আগেই মাঠে ছিলেন সাকিব আল হাসান। এই দুই ব্যাটসম্যানে প্রাথমিক চাপ সামলে উঠে দলীয় শতক পার করে টাইগাররা। একই ভাবে সাকিব-মুশফিকে ভালো ভাবেই এগোয় বাংলাদেশ।

দলীয় দেড়শ রান ও অতিক্রম করে টাইগাররা। দুই ব্যাটসম্যানই তুলে নেয় নিজেদের অর্ধশত। ৯৫ বলে ১০০ রানের পার্টানারশিপ তাদের এই ম্যাচে। চার মেরে নিজের অর্ধশত পার করেন মুশফিক। তারপর সাকিব-মুশিতে দলীয় দুইশত পার করে বাংলাদেশে। বড় সংগ্রহের পথে টাইগাররা। কিন্তু হুট করে বাঁধ সাধল ইমরান তাহির। টাইগারদের রাঁধা ভাতে ছাই দিল।

ইমরান তাহিরের বাজে বলে বোল্ড হয়ে ঘরে ফেরেন সাকিব। যদিও ফেরার আগে নিজের নম্বর ৭৫ এর মত ৭৫ রান করে মাঠ ছাড়েন টাইগার অলরাউন্ডার। ঘরের ফেরার আগে বিশ্বকাপে টাইগারদের পক্ষে সবচেয়ে বেশি রানের পার্টনারশিপ এখন সাকিব-মুশির।

কিন্তু আবারো টাইগার শিবিরের উপর অভিশাপ হয়ে আসলো সেই ইমরান তাহির। ঠিক আবারো বোল্ড করে ঘরে ফেরানেল মোহম্মদ মিঠুনকে। ফেরার আগে দলকে ২১ রানের ইনিংস উপহার দেন এই ব্যাটসম্যান। আজ অ্যান্ডি ফিলহুকওয়েও চড়াও হয়েছে টাইগারদের উপর। ডুসেনের হাতে ক্যাঁচ হয়ে ঘরে ফিরলেন মুশফিক(৭৪)। বিশ্বকাপে শতক করা হলো না এই টাইগার ডিপেন্ডেবলের। এরপর মাঠে নামেন প্রথমবার বিশ্বকাপ খেলা মোসাদ্দেক। মোসাদ্দেক ঝড়ে দিক হারিয়ে ফেলে প্রোটিয়ারা।

যদিও শেষের দিকে ক্যাঁচ হয়ে ফেরেন এই ব্যাটসম্যান। যাওয়ার আগে বড় সংগ্রহে ২০ বলে ২৬ রান করে অবদান রেখে যান। মাহমুদউল্লাহ ও মেহেদি হাসানে ৬ উইকেট হারিয়ে ৩৩০ রানে শেষ হয় বাংলাদেশের ইনিংস। আর এতেই বিশ্বকাপে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ রানের দেখা পায় এই ম্যাচে। এমনকি ওয়ানডেতেও এই স্কোররই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ। মাহমুদউল্লাহ ৪৬ ও মেহেদি হাসান ৫ রানে অপরাজিত থাকেন।

ad