টাকা দিয়ে প্রাথমিকে চাকরি পাওয়া অতীত ইতিহাস: গণশিক্ষা মন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট::
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, অনেকেই বলেন টাকা ছাড়া কোন চাকরি হয় না। কেউ বলেন, প্রাথমিকে শিক্ষক হতে ১০ লাখ টাকা লাগে। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে টাকা দিয়ে কেউ প্রাথমিকে শিক্ষক হতে পারেন না। এটা অতীত ইতিহাস। কেউ দুই কোটি টাকা দিলেও যোগ্য না হলে তিনি চাকরি পাবেন না।

আজ সচিবালয়ে শিক্ষা বিষয়ক সাংবাদিক সংগঠন ‘ইরাব’ নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠককালে এসব কথা বলেন তিনি।

মোস্তাফিজুর রহমান আরও বলেন, চাকরিতে ১ শত নম্বরের মধ্যে ৮০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা নেয় বুয়েট। মাত্র ২০ নম্বর মৌখিক পরীক্ষার জন্য বরাদ্দ থাকে। কোন প্রার্থী মৌখিক পরীক্ষায় হাজিরা দিলেই তাকে কমপক্ষে ১০ নম্বর দেওয়া হয়। পরীক্ষার মাধ্যমে দেওয়া হয় কিছু নম্বর।

ad

মন্ত্রী বলেন, প্রতারকরা চাকরির মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে চাকরিপ্রার্থীদের কাছে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেয়। অথচ দেখা যায়, তাদের অনেকের নিজ যোগ্যতাতেই চাকরি হয়। তখন ঐ ব্যক্তি পুরো টাকাই নিজের পকেটে নেন। আর চাকরি না হলে পরে প্রার্থীর টাকা ফেরত দেন। এমন প্রতারকদের থেকে সাবধান থাকার পরামর্শ দেন মন্ত্রী।

গণশিক্ষা মন্ত্রী আরও বলেন, সারাদেশে ৬৫ হাজারের বেশি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। প্রতি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে। এমন কোনো স্থান নেই যেখানে দুই কিলোমিটারের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই। তাই নতুন করে আর কোনো প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ করার পরিকল্পনা নেই।