জনপ্রিয় সাংসদ বদির বিরুদ্ধে অসত্য ও অপত্তিকর বক্তব্য দেওয়ায় উখিয়া আঃলীগ পরিবার ও জনগনের তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা

গত কাল বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর)দৈনিক কক্সবাজার পত্রিকায় কক্সবাজার -৪, উখিয়া-টেকনাফ আসনের জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংক্রান্ত প্রকাশিত প্রতিবেদনে বর্তমান জনপ্রিয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আবদুর রহমান বদির বিরুদ্ধে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন দাবীদার তাঁতী লীগের কার্যকরী সভাপতি সাধনা দাশ গুপ্তা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মাননীয় সভানেত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনার নিদের্শনা না মেনে বিরোধী দলীয় নেতাদের মত পত্রিকায় ও জনসম্মুখে আপত্তিকর এবং অসত্য,বানোয়া বক্তব্য দিয়ে জনগনের মধ্যে বিভ্রান্তী সৃষ্টি করায় এবং মাননীয় প্রাধনমন্ত্রীর দেওয়া উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলায় হাজার কোটি টাকার দৃশ্যমান উন্নয়ন প্রকল্প মাননীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদির মাধ্যমে বাস্তবায়ন করার বিরুদ্ধে বক্তব্য দেওয়ায় উপজেলা আওয়ামী লীগ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দরা ক্ষুব্দ প্রতিক্রিয়া সহ তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। এবং ভবিষ্যতে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সকলের কাছে এধরনের দল রিরোধী, আত্বঘাতী বক্তব্য প্রদান না করার জন্য প্রত্যাশা করি।

পত্রিকায় পাঠানো প্রতিবাদে নেতৃবৃন্দরা উল্লেখ করেছেন প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিক সহায়তায় উখিয়া টেকনাফ আসনের জনপ্রিয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আবদুর রহমান বদি বিগত সাড়ে ৯ বছরে অভূতপূর্ব উন্নয়ন করেছে। যা এলাকার জন্য মাইল ফলক। এছাড়াও সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আবদুর রহমান বদি উখিয়া-টেকনাফের প্রতিটি গ্রামে গঞ্জে ও ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে গিয়ে অবহেলিত রাস্তা-ঘাট, কালভার্ট ও ব্রীজ নির্মান সহ মসজিদ মাদ্রাসা স্কুল কলেজ ও মন্দিরের ব্যাপক উন্নয়ন করেছে। হাজার হাজার দু:স্থ ও গরিব পরিবারের মাঝে চাল বিতরণ সহ বিভিন্ন প্রকার সামগ্রী বিতরণ করে আসছেন। বিশেষ করে টাকার অভাবে চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত অসহায় রোগীদেরকে নগদ অর্থ দিয়ে চিকিৎসার সু-ব্যবস্থা এবং অচ্ছল পরিবারের মেয়েদেরকে আর্থিক সাহায্য দিয়ে বিবাহের ব্যবস্থা করে দিয়ে সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আবদুর রহমান বদি গরিবের বন্ধু হিসাবে সকলের নিকট প্রসংশিত।

প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতায় উখিয়া-টেকনাফের উন্নয়ন ও মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে সাংসদ বদি নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। বর্তমানে এ সব উন্নয়ন কাজ দৃশ্য মান। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে একের পর এক উন্নয়ন হয়েছে তা বিগত ৩০ বছরেও হয়নি। উন্নয়নের রূপকার সাংসদ বদির জনপ্রিয়তা এখন আকাশ চুম্বী।

নেতৃবৃন্দরা প্রচন্ড ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, পত্রিকায় প্রকাশিত নির্বাচন সংক্রান্ত প্রতিবেদনে তথাকথিত সাধনা দাশ গুপ্তা তার বক্তব্যে সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি নিজের ভাগ্য পরিবর্তন করেছে। সাধারণ মানুষের জন্য কিছু করেনি। এছাড়া ইয়াবা নিয়েও আপত্তিকর তথ্য উপস্থাপন করেছে।

ad

জনপ্রিয় বর্তমান সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদির বিরুদ্ধে তাঁতী লীগের কার্যকরী সভাপতি সাধানা দাশ গুপ্তার অশালীন ও মানহানিকর বক্তব্য অত্র নির্বাচনী এলাকার সাধারণ জনগন থেকে শুরু করে আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ও তৃনমূলের নেতা কর্মীরা ক্ষুব্দ ও বিক্ষোব্দ হয়ে উঠেছে। নেতৃবৃন্দরা তীব্র ভাষায় উক্ত দায়িত্বহীন বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছেন এধরনের ধৃষ্টতাপূর্ণ ও চরম অপত্তিকর বক্তব্য অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানান। অন্যতায় সাংগঠনিক ভাবে সমুচিত জবাব দেওয়া হবে।

প্রতিবাদ লিপিতে নেতৃবৃন্দরা স্বরণ করে দিয়ে বলেন, মাননীয় প্রধান মন্ত্রী ও দলের সাধারণ সম্পাদক সু- স্পষ্ট ভাষায় নির্দেশনা দেন যে, মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীরা কোন অবস্থাতে দলীয় সাংসদের বিরুদ্ধে বক্তব্য দিতে পারবে না। কেবল সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড জনগনের কাছে তুলে ধরতে হবে। সাধনা দাশ গুপ্তার সংগঠন বিরোধী বক্তব্য দিয়ে দলের ভাব মূর্তি ক্ষূন্ন করেছে বলে আমরা মনে করি।

পরিশেষে আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীকে বিজয় করে শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী হিবাবে ক্ষমতায় বসানোর জন্য দলীয় নেতা কর্মীদেরকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করার জন্য আহবান জানানো হয়।

প্রতিবাদকারী

অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী সভাপতি, আবুল মনছুর চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সহ সভাপতি যথাক্রমে আমিনুল হক আমিন, ইসকান্দর হোসেন চৌধুরী ও আহমদ উল্লাহ সওদাগর, যুগ্ম সস্পাদক যথাক্রমে নুরুল হুদা ও অধ্যাপক হেলাল উদ্দিন চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক, মাহবুবুল আলম মাহবুব সাগঠনিক সম্পাদক, রিয়াজুল হক শ্রমবিষয়ক সম্পাদক, ফরিদুল আলম কৃষি বিষয়ক সম্পাদক, নেজাম উদ্দিন দুলাল ক্রীড়া সম্পাদক, আবদুল জলিল সহ প্রচার, ছৈয়দ ইলিয়াস কাঞ্চন সাংস্কৃতিক বিষয়ক, আকবর আহমদ চৌধুরী, মোস্তাক আহমদ, জমির আহমদ, মেম্বার পুতুল রাণী বড়–য়া, উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ।

এস.এম ছৈয়দ আলম সভাপতি জালিয়া পালং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ। আছহাব উদ্দিন মেম্বার সভাপতি, মো: আলমগীর সাধারণ সম্পদক, রত্মাপালং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ। মেম্বার মো: ইসলাম সভাপতি, ফজল করিম সওদাগর সাধারণ সম্পাদক, হলদিয়া পালং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ। এম.এ মনজুর সভাপতি, ফজল কাদের ভূট্টু সাধারণ সম্পাদক, পালংখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ। শাহদত হোসেন জুয়েল, আলী আহমদ, অহিদুল হক চৌধুরী, মেম্বার আবদুল গফুর সওদাগর,আবুল ফজল মেম্বার, মোক্তার আহমদ লাবু, ডা: নুরুল ইসলাম, সেলিম উদ্দিন, ও ছৈয়দ হোসন।