ক্রিকেট বিশ্বে ইসলামকে বেছে নিয়েছেন যারা

বিশিষ্ট লোক যাদের দুনিয়া ব্যাপী মানুষ চিনে জানে। বিশেষ করে নতুন প্রজন্মের কাছে যাদের আকর্ষণ অনেক। আধুনিক পরিভাষায় মানুষ যাদের সেলিব্রেটি বলে জানে, তাদের জীবন ধারা মানুষকে আকৃষ্ট করে। তাদের কৃতিত্ব যেমন প্রভাব বিস্তার করে, তাদের সিদ্ধান্ত বা পছন্দ থেকেও অনেকে প্রভাবিত হয়। কয়েকজন সেলিব্রেটির নিজ ধর্ম পরিবর্তন করে ইসলাম গ্রহনের কথা পাঠকের জন্য প্রকাশ করা হলো। কেননা জন্মের পর থেকেই প্রত্যেক মানুষ উত্তরাধিকার সুত্রে বিভিন্ন ধর্মের অনুসারী হয়। ধর্ম একটি মানুষের চিন্তা চেতনার প্রতিফলন। ক্রিকেট জগতে কিছু নওমুসলিমের কথা এখানে তুলে ধরা হলো।
এসব ক্রিকেটার ইসলাম ধর্মের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে নিজ ধর্ম ত্যাগ করেছেন। ইসলাম ধর্ম পৃথিবীর সর্বাধিক ক্রমবর্ধমান ধর্ম। তাই গোটা বিশ্বে বিভিন্ন ধর্ম থেকে লোকজন প্রতিদিন ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে থাকে।
এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে পৃথিবীতে প্রতিদিন গড়ে ৩২০০ মানুষ ইসলাম গ্রহণ করে। আগামী কিছুদিনের মধ্যে পৃথিবীর প্রতি ৪ জনে ১ জন হবে মুসলমান।
১। মাহমুদুল হাসান (বাংলাদেশ)
মাত্র ১৮ বছর বয়সেই বাংলাদেশ জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছিলেন মাহমুদুল হাসান। বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট খেলা এই সাবেক পেসার ২০০৪ সালে হিন্দু ধর্ম থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। এই ব্যাপারে তিনি জানিয়েছিলেন, ছোটবেলা থেকেই ইসলাম ধর্মের অনুরাগী হওয়ার কারণে এই ধর্ম গ্রহণ করেছেন তিনি। বই পড়ে এই ধর্ম সম্পর্কে জেনেছেন। ছোটবেলায় রোজাও রাখতেন। তার আগের নাম ছিল বিকাশ রঞ্জন দাস।
২। মোহাম্মদ ইউসুফ (পাকিস্তান)
ইউসুফ ইয়োহানা নামে পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দলের হয়ে ক্যারিয়ার শুরু করেন এই পাকিস্তানি গ্রেট ক্রিকেটার। ২০০৫ সালে তিনি নিজেই ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত হয়ে নিজের নাম পরিবর্তিত করে রাখেন মোহাম্মদ ইউসুফ। ইসলাম গ্রহনের পর থেকেই তিনি একজন ধর্মপ্রাণ মুসলমান হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তার স্ত্রী তানিয়াও ইসলাম ধর্মে রূপান্তরিত হয়েছেন ফাতেমা নামে।
৩। ওয়েন পারনেল (দক্ষিণ আফ্রিকা)
দক্ষিণ আফ্রিকার এই পেসার ২০১১ সালেই ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার ঘোষণা দেন। পারনেল জানিয়েছিলেন, তার কোন মুসলিম সতীর্থের মাধ্যমে প্রভাবিত হয়ে নয়; বরং, ধর্ম সম্পর্কে দীর্ঘ সময় যাবত অধ্যয়ন করার পর নিজেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। দক্ষিণ আফ্রিকা দলে একই সাথে আছেন আরও দুই মুসলিম ক্রিকেটার হাশিম আমলা ও ইমরান তাহির। ওয়েনের বর্তমান নাম ওয়েইন ওয়ালিদ পারনেল। অবশ্য এখনও তিনি আগের নামটাই ব্যবহার করছেন।