কুতুপালং বাজারের দোকানগুলো রোহিঙ্গাদের দখলে !

উখিয়া উপজেলার ব্যস্ততম এলাকা কুতুপালং বাজারের দোকানগুলো রোহিঙ্গাদের দখলে চলে গেছে। এ বাজারে কোটি কোটি ব্যায়ে চোরাই স্বর্ণের দোকান,বিকাশ এজেন্ট, মোবাইলের দোকান,মুদির দোকান থেকে শুরু গার্মেন্টস সামগ্রীর দোকানের মালিক পর্যন্ত রোহিঙ্গা।
মানবিক দৃষ্টিকোন থেকে আশ্রয় পাওয়া এসব রোহিঙ্গারা একদিকে পাচ্ছে এনজিওগুলোর সহায়তা। অপরদিকে করছে কোটি কোটি টাকার ব্যবসা।
অভিযোগ রয়েছে,এসব দোকানের আড়ালে রোহিঙ্গারা ইয়াবা,চোরাই স্বর্ণ ও হুন্ডি ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে বেপরোয়া ভাবে। বিকালের পর থেকে এসব দোকানে চলে গোপনে ইয়াবা বেচাবিক্রি। বিশেষ করে ইয়াবার চিস্থিত এজেন্ট রোহিঙ্গা ইমাম হোসেন ও ইদ্রিস দোকানের আড়ালে চালিয়ে যাচ্ছে ইয়াবা ও হুন্ডি বানিজ্য। পাশাপাশি স্বর্ণের দোকান গুলোতে চলছে চোরাই স্বর্ণের বানিজ্য। স্থানীয় ইজারদার ও মার্কেট মালিকদের আশ্রয় প্রশ্রয়ে রোহিঙ্গারা কুতুপালং বাজারে এসে কোটি কোটি টাকার ব্যবসা করতে পারছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।

স্থানীয় কুতুপালং বাজার কমিটির সভাপতি মুজিবুল হক বলেন,রোহিঙ্গাদের কারনে কুতুপালং বাজারে স্থানীয়রা কোনটাসা অবস্থায় রয়েছে। দীর্ঘদিনের ইতিহ্যবাহী কুতুপালং বাজার এখন রোহিঙ্গাদের দখলে বলা চলে।

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন