কিশোরীর ইচ্ছা পূরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী

বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন এক কিশোরীর ইচ্ছা পূরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলার ইচ্ছা প্রকাশ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় দেওয়া ভিডিও বার্তার প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী ওই কিশোরীর সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলেন। হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী রায়া নামের ওই কিশোরীর সঙ্গে কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন।

এক ভিডিও বার্তায় রায়া বলেছিল, তার ইচ্ছে প্রধানমন্ত্রী তাকে ভিডিও কল করবেন। আর এ জন্য প্রতিদিন অপেক্ষায়ও থাকে সে। কিন্তু ভিডিও প্রকাশের এক দিনের মাথায় প্রধানমন্ত্রী নিজে ভিডিও কল করেছেন রায়াকে। তার সঙ্গে গল্প করেছেন। শুনেছেন রায়ার কবিতা আবৃত্তি। বেশ কিছু সময় ধরে গল্পও শুনেছেন রায়ার থেকে।

এ ব্যাপারে গণমাধ্যমকে রায়ার মা নাবিহা রহমান পিংকী বলেন, এটা তার মেয়ে রায়া ও তার জন্য ছিল অবিশ্বাস্য। বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায় আমার মোবাইল ফোনে ভিডিও কল করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন একটি শিশুর ইচ্ছে পূরণে একজন সরকারপ্রধানের এমন ভূমিকায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন নাবিহা রহমান।

গণমাধ্যমকে তিনি জানান, হঠাৎ পাওয়া এ কলে হতবিহ্বল হয়ে পড়েন তিনি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিক আচরণে তার মনেই হয়নি তিনি সরকারপ্রধানের সঙ্গে কথা বলছেন। ‘মনে হচ্ছিল আমার মা কিংবা ফু্পির সঙ্গে কথা বলছি’, অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন নাবিহা রহমান।

তিনি জানান, রায়া ভিডিও কলে প্রধানামন্ত্রীকে জাতীয় সংগীত ‘আমার সোনার বাংলা’ গেয়ে শুনিয়েছে। রায়ার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীও জাতীয় সংগীতে কণ্ঠ মিলিয়েছেন। এছাড়া রায়া প্রধানমন্ত্রীকে একটি কবিতা আবৃত্তি করে শুনিয়েছেন বলেও জানান নাবিহা রহমান।

এদিকে আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপিকা অপু উকিল তার ফেসবুক আইডি থেকে পোস্ট দিয়েও প্রধানমন্ত্রীর কথা বলার বিষয়টি জানিয়েছেন। পোস্টে অপু উকিল ওই কিশোরীর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কলের দুটি স্থির চিত্রও প্রকাশ করেছেন।

ফেসবুক পোস্টে অপু উকিল লিখেছেন, ‘নিজের জীবনকে জনগণের জন্য উৎসর্গ করে দিয়ে যিনি প্রতিটি মুহূর্ত এদেশের মানুষের স্বপ্ন সত্যি করতে চান, ইচ্ছা পূরণ করতে চান। তিনি জনকের কন্যা মানবতার বাতিঘর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।’

অপু উকিল আরও লিখেছেন, ‘এক কিশোরী প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবার আগ্রহ প্রকাশ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলো। মানবিক প্রধানমন্ত্রী সে কথা জানতে পেরে পরম স্নেহে কিশোরীটির সঙ্গে ভিডিও কল করে শত ব্যস্ততার মধ্যেও কথা বলেছেন।

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন