কিডন্যাপের ভয়ে হেলমেট পরে থানায় কাঁচা বাদামের গায়ক

ইউটিউব ও ফেসবুক থেকে শুরু করে ভিডিও শেয়ারিং প্রত্যেকটি প্ল্যাটফর্মে নজর কাড়ছে ‘কাঁচা বাদাম’ শিরোনামের একটি গানটি। গান ভাইরাল হলেও ভালো নেই গানের গায়ক ভুবন বাদ্যকর। উল্টো পড়েছেন নানা বিড়ম্বনায়। তিনি গানের রয়্যালটি না পাওয়ার অভিযোগ করেছেন থানায়।

তিনি ভারতের তার স্থানীয় থানা দুবরাজপুরে গিয়েছিলেন আজ। এ সময় তিনি কিডনাপের ভয়ে হেলমেট পরে থানায় যান। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।
জানা গেছে, ভারতের বীরভূম জেলার দুবরাজপুর ব্লকের কুড়ালজুড়ি গ্রামের বাসিন্দা ভুবন মূলত এই গানে গানে ‘কাঁচা বাদাম’ বিক্রেতা বাদ্যকর।

তিনি একটি পুরোনো মোটরসাইকেলে করে খালি পায়ে বিভিন্ন গ্রামে বাদাম বিক্রি করেন। এমনকি পাশের রাজ্য ঝাড়খণ্ডেও যান তিনি। বাদাম বিক্রির পাশাপাশি তিনি মানুষকে মনোরঞ্জন করার জন্য গানও করেন। বাদাম বেচতে বেচতে বেশ ভেবেচিন্তে গান বেঁধেছেন তিনি।
সে গানের কথায় নিজেই মিশিয়েছেন সুর। সে সুরেই মাতোয়ারা নেটমাধ্যম।
ভুবন বাদ্যকরের দাবি, তার এই গান ইতিমধ্যে ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। ইউটিউবের মাধ্যমে এই গান গেয়ে প্রচুর মানুষ টাকা আয় করছেন অনেকে, কিন্তু তিনি কিছুই পাচ্ছেন না। তার গান ভাইরাল হওয়ার কারণে প্রচুর মানুষ প্রত্যেকদিন তার বাড়িতে ভিড় করছেন সকলে গান ভিডিও রেকর্ডিং করছেন।

সেগুলো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দিয়ে টাকাও আয় করছেন, কিন্তু তিনি কিছুই পাচ্ছেন না। এমনকি ইউটিউবেও তার গান কপিরাইট দেখাচ্ছে, কিন্তু তিনি নিজে কোনো গানই আপলোড করেননি।
তার দাবি, পুলিশ প্রশাসন তদন্ত করুক এবং তার প্রাপ্য টাকা তাকে পেতে সাহায্য করুক। এছাড়া তার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার কারণে তিনি আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। তিনি জানান, থানায় আসার সময়ও তিনি হেলমেট পড়ে এসেছেন। কারণ তার সন্দেহ, কেউ তাকে কিডন্যাপও করে নিতে পারে। এমনকি থানায় পৌঁছেও জনপ্রিয়তার মাসুল গুনতে হয়েছে তাকে। সেখানেও অনেকেই ভুবনকে চিনতে পেরে ছবি তোলার আবদার করেন। হাসিমুখে অবশ্য সে আবদার মেটান তিনি

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন