উখিয়ায় রোহিঙ্গা যুবতী পাচারের চেষ্টা, দুই জনের ৭ মাসের কারাদণ্ড

উখিয়া নিউজ ডেস্ক::
 উখিয়ার আশ্রয় শিবির থেকে রোহিঙ্গা যুবতী পাচারের সময় শুক্রবার দুই জনকে আটক করে আইনশৃঙ্খলাবাহিনী। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে  তাদের ৭ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।
জানা গেছে, শুক্রবার বিকাল ৩ টার দিকে আশ্রয় শিবির থেকে এক রোহিঙ্গা যুবতী নারী পাচারের সময় উখিয়া ডিগ্রি কলেজ সংলগ্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তল্লাশী চৌকিতে হাতেনাতে ধরা পড়ে দুই ব্যক্তি। এরা হলেন, খুলনার রফিকুল ইসলাম (৩২) ও সাতক্ষীরার হারুনুর রশিদ (৩৭)। পরে তাদের উভয়কে ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাত মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।
ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উখিয়া উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) একরামুল ছিদ্দিক। তিনি বলেন, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে উখিয়ার বালুখালী খেলার মাঠ অস্থায়ী আশ্রয়শিবির থেকে এক যুবতী নারীকে খুলনা নিয়ে যাচ্ছিলেন ওই ব্যক্তি। ওই সময় হাতেনাতে ধরা পড়ে তারা। পরে আদালতের কাছে অপরাধ স্বীকার করায় তাদেরকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়।
দণ্ডপ্রাপ্ত দুই ব্যক্তি ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে নিজেদেরকে মসজিদের ইমাম পরিচয় দেন।  দণ্ডপ্রাপ্ত দুই জনের উদ্বৃতি দিয়ে তিনি আরও বলেন, গত ২৮ নভেম্বর খুলনা থেকে সরাসরি এসে উখিয়ার বালুখালী খেলার মাঠে অস্থায়ী আশ্রয় শিবিরের পাশের একটি মসজিদে অবস্থান করেন তারা। টানা তিনদিন সেখানে অবস্থান করেন। পরে ওই যুবতী নারীর বাবাকে ফুঁসলিয়ে তাঁর মেয়েকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।