ইয়াবা, স্বর্ণালংকারসহ একই পরিবারের চারজন আটক

কক্সবাজারের টেকনাফে ইয়াবা, মিয়ানমারের মুদ্রা কিয়েট, স্বর্ণালংকারসহ মা–বাবা, ছেলে ও ছেলের বউকে আটক করেছেন বিজিবির সদস্যরা। পৃথক আরেক অভিযানে আটক করা হয়েছে আরও তিনজনকে। জব্দ করা হয়েছে একটি অটোরিকশা।

আটক সাতজন হলেন টেকনাফ সদরের বরইতলীর শফি উল্লাহ (৫৫), তাঁর স্ত্রী তৈয়বা বেগম (৪০), ছেলে আনোয়ার হোসাইন (১৯), আনোয়ারের স্ত্রী লাকি আক্তার (১৯); হ্নীলার মো. পারভেজ (২৬), একই এলাকার মো. জালাল (২৬) ও মো. রেদোয়ান (১৯)।

শুক্রবার ভোরে টেকনাফ সদরের কেরুনতলি ও দমদমিয়া তল্লাশিচৌকিতে অভিযান চালিয়ে ৪০ হাজার ৬০০টি ইয়াবা বড়ি, ২ লাখ ৩০ হাজার ২০০ কিয়েট, ১৪ গ্রাম স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়েছে। প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ-২ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শেখ খালিদ মোহাম্মদ ইফতেখার।

বিজিবি সূত্রে জানা গেছে, বিজিবির বিশেষ টহল দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কেরুনতলীর নাফ নদীসংলগ্ন একটি বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় বাড়িতে থাকা চারজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে তাঁরা স্বীকারোক্তি দেন। পরে গ্যাস সিলিন্ডারের ভেতর ১০ হাজার ইয়াবা, ২ লাখ ৩০ হাজার ২০০ কিয়েট, ১৪ গ্রাম স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়। আটক ব্যক্তিদের দেওয়া তথ্যর ভিত্তিতে হ্নীলার চৌধুরীপাড়া স্লুইসগেট এলাকায় লুকানো অবস্থায় আরও ৩০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

একই দিন ভোরে হ্নীলার ইউনিয়নের দমদমিয়ায় টেকনাফ-কক্সবাজার আঞ্চলিক সড়কে একটি অটোরিকশায় তল্লাশি চালানো হয়। গাড়িতে থাকা তিনজনের শরীরের বিভিন্ন অংশে অভিনব কায়দায় বেঁধে রাখা অবস্থায় ৬০০ ইয়াবা, ৩টি মুঠোফোনসহ অটোরিকশাটি জব্দ করা হয়।

টেকনাফ-২ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শেখ খালিদ মোহাম্মদ ইফতেখার বলেন, উদ্ধার করা ইয়াবা, কিয়েট, অটোরিকশাসহ আটক ব্যক্তিদের থানা-পুলিশে সোপর্দ এবং জব্দ করা স্বর্ণালংকার জেলা প্রশাসকের কোষাগার শাখায় জমা দেওয়া হবে।

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন