অতিরিক্ত চিন্তা মানসিক রোগের লক্ষণ!

ফাতেমা তুজ জোহুরা::মানসিক রোগ এমনিতেই দেখা যায় না। যাদের উদ্বেগ বা অ্যাংজাইটির সমস্যা হয়নি, তাদের পক্ষে এর কষ্ট বোঝা সহজ নয়। ভুক্তভোগীর জন্য চারপাশের মানুষের আচরণ তখন অনেকটাই বিরূপ মনে হয়।

উদ্বেগ সাধারণ কিছু নয়, যা কিছুক্ষণ পর চলে যাবে। এটি একটি মানসিক সমস্যা। দীর্ঘদিন ধরে এই সমস্যায় ভুগলে তা পরিণত হয় হতাশায়, হতাশার চরম পর্যায়ে আত্মহত্যা করতেও পিছপা হন না কেউ কেউ।

তাহলে উদ্বেগের সমস্যায় ভুগলে আসলে কেমন লাগে? আসুন জেনে নেই:

.মাঝে মনে হয় যেন বুকের ভিতর ব্যথা হচ্ছে। দম বন্ধ হয়ে আসে, ঠিকমতো নড়াচড়া করতেও কষ্ট হয়।

.পাকস্থলীতে নানা রকমের প্রতিক্রিয়া দেখা যাবে। পেটে মোচড় দিবে, বমি বমি ভাব, এমনকি বমিও হতে পারে।

.উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠার ঠিক কোনো কারণ থাকে না। দেখা যায়, মাঝ রাতে কোনো কারণ ছাড়াই ঘুম ভেঙে গেছে এবং কোনো পুরনো স্মৃতি মনে করে দুশ্চিন্তা হচ্ছে। উদ্বেগ সেখান থেকে শুরু হয়ে যায়।

.মাঝে মাঝে হৃদপিণ্ডের গতি এত বেড়ে যায় যে মনে হয় হার্ট অ্যাটাক হচ্ছে। এক পর্যায়ে হাত পা ঘেমে ঠাণ্ডা হয়ে যায়, গলা শুকিয়ে কাঠ হয়ে যায়, হাত- পা কাঁপতে থাকে।

.মাঝে মাঝে নিজেকে নেশাগ্রস্তের মতো মনে হয়। তখন স্বাভাবিক কাজকর্মেও গোলমাল পাকিয়ে যায়।

.সারাক্ষণ সামান্য কারণে দুশ্চিন্তা করা এবং এক পর্যায়ে খুবই ক্লান্তিকর হয়ে উঠে, তার ওপর দুশ্চিন্তার কারণে ঠিকমতো ঘুমও হয় না।

উদ্বেগের সমস্যায় ভোগা মানুষের কষ্ট কতখানি এখন সেটা বুঝাই যাছে। যদি আশেপাশের কোনো মানুষের মধ্যে এমন মানসিক সমস্যার লক্ষণ দেখা যায়, তবে দেরি না করে একজন মনোবিজ্ঞানীর সাহায্য নিন।